বাণিজ্য মেলায় জনতার ঢল ,নিজস্ব প্রতিবেদক ,নতুন খবর

শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে বাণিজ্য মেলা । কেনাকাটায় ব্যস্ত ক্রেতা-বিক্রেতারা। মানুষের ঢল সামলাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকেও হিমশিম খেতে হচ্ছে। শেষ সময়ে ব্যাপক জনসমাগমে উপচেপড়া ভিড় দেখা গিয়েছে রাজধানীর ২৫তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায়। মেলার প্রাঙ্গণজুড়ে তিল ধারণের ঠাঁই নেই। বিভিন্ন স্টল ও প্যাভিলিয়নগুলোতে দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের ভিড়। বর্ধিত সময়ে পুরো মেলা প্রান্তরই যেন উপচেপড়া ভিড়। অন্যদিকে শান্তি-শৃঙ্খলা বজার রাখতে ব্যাপক তৎপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।
সরেজমিন দেখা যায়, মেলাকে ঘিরে আগারগাঁও এলাকার আশপাশ ব্যাপক মানুষের সমাগমে বেশ যানজট। অনেকেই গাড়ি থেকে নেমে হেঁটে মেলা প্রাঙ্গণে যেতে দেখা যায়। মিরপুর, ফার্মগেট, শেরেবাংলা নগর, কল্যাণপুর, খামারবাড়ি, শ্যামলী থেকে অসংখ্য মানুষ রাস্তায় যানজটের কারণে হেঁটে মেলায় আসছেন।

মেলার প্রাঙ্গণজুড়ে দেখা যায় অসংখ্য মানুষের ভিড়। প্রচণ্ড ভিড়ের মাঝেই সবাই ছুটে চলেছেন পছন্দের জিনিসটি ক্রয় করতে। মেলার শুরুতে দর্শনার্থীর অভাবে তেমন কোনো ব্যবসা করতে না পারলেও শেষ দিনগুলোতে পণ্য বিক্রিতে বেশ ব্যস্ত সময় পার করেতে দেখা গিয়েছে ব্যবসায়ীদের। দর্শনার্থীর ভিড়ে নানান ছাড়ের ব্যবস্থায় চলছে বেচাকেনা। তবে প্রয়োজনীয় পণ্য স্বল্পমূল্যে দর্শনার্থীরা পেয়ে বেশ খুশি। অন্যদিকে বিক্রেতারাও খুশি তাদের পণ্য সহজে বিক্রি করতে পারায়।

মিজানুর রহমান নামে এক ক্রেতা জানান, শেষ মুহূর্তে পণ্য বিক্রিতে বেশ ছাড়ের কারণে পছন্দের পণ্য ক্রয়ে ভালোই লাগছে। তাছাড়া প্রতি বছরই মেলার শেষ দিনগুলোতে অসংখ্য ছাড়ের কারণে দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের সমাগম একটু বেশি থাকে। তবে এ বছর মেলার টিকিটের দাম বেশি থাকায় কিছুটা হতাশা প্রকাশ করেছেন মেলায় আগত দর্শনার্থীরা।মেলার শেষ সময়ে এসে অনেক ভিড়ের মাঝে গৃহস্থালির পণ্য, কাপড়ের দোকানগুলো ও বিদেশি বেশ কিছু প্যাভিলিয়নে বেশি ভিড় দেখা গেছে।মেলার দোকান মালিকরা জানালেন, এ বছরের মেলায় দর্শনার্থী খড়ায় শুরুতে তেমন বেচাকেনা হয়নি তবে শেষ বেলায় ভালো বেচাকেনা হয়েছে।

এদিকে, মেলায় আগত দর্শনার্থীদের সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের। মেলার নিরাপত্তার স্বার্থে প্রবেশ পথ থেকে শুরু করে ভেতর পর্যন্ত সাদা পোশাকেও নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তারা। সন্দেহজনক হলেই ব্যাগ ও শরীর তল্লাশি করতে দেখা গেছে। দায়িত্বরত কর্মকর্তারা বলছেন, বাকি দিনগুলো যাতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়া মেলার কার্যক্রম শেষ হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখেই কাজ করে যাচ্ছেন তারা।
মেলায় আগত দর্শনার্থীরা পণ্য ক্রয় করে যাতে প্রতারিত না হন সেদিকে লক্ষ্য রেখে তৎপর রয়েছে জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এরই মধ্যে বেশ কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে স্টল ও প্যাভিলিয়নের মালিকদের জরিমানা করা হয়েছে বলেও জানা গেছে।

অন্যদিকে মেলার আয়োজক কমিটি বেশ খুশি শেষ মুহূর্তে মেলায় উপচেপড়া ভিড় দেখে। মেলার আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব মো. আব্দুর রউফ জানিয়েছেন, ২৫তম মেলা সত্যিকারেই সফল। প্রতি বছরই শেষ দিনগুলোতে মানুষের উপচেপড়া ভিড় পরিলক্ষিত হয়। এ বছরও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা এখন লাখো মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে বলেও জানান আয়োজক কমিটি।

গত ৩১ জানুয়ারি ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ব্যবসায়ীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় ফেব্রুয়ারির ৪ তারিখ পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও ব্যবসায়ীদের আলোচনার পর আরও দুইদিন অর্থাৎ ৬ ফ্রেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে মেলার সময়সীমা।

নতুন খবর/ আমিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *