বসন্তকে বরণ করে নিতে প্রস্তুত বইমেলা , নিজস্ব প্রতিবেদক ,নতুন খবর

সময়ের দরজায় কড়া নাড়ছে ঋতুবাজ বসন্ত। বাতাসে ভাসছে বসন্তের আগমনী গান। ইতোমধ্যে কুঁড়ি মেলেছে শিমুল-পলাশের। এক কথায় ঋতুরাজকে বরণ করতে প্রকৃতি সেজেছে অপরূপ সাজে। বসন্তকে বরণ করে নিতে প্রস্তুত বইমেলাও।

আগামীকাল শুক্রবার পহেলা ফাল্গুন, বসন্তের প্রথম দিন। একই সঙ্গে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এ দিনটিকে ঘিরে প্রণোচ্ছ্বল হয়ে ওঠে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। ঘোরাঘুরি, আড্ডা আর বই কেনায় ব্যস্ত সময় কাটান তরুণ-তরুণীরা।ছুটির দিন হওয়ায় প্রাণের মেলায় ছুটে আসবেন সব বয়সী মানুষ। থাকছে শিশু প্রহরও।সবমিলিয়ে আগামীকাল জমজমাট হয়ে উঠবে বইমেলা।
তারই আভাস দেখা গেছে মেলা প্রাঙ্গণে। বইপ্রেমীদের ঢল সামাল দিতে বাড়তি প্রস্তুতি নিতে দেখা গেছে বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ ও প্রকাশকদের।

গতকাল বুধবার বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে সরজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, শাড়ি আর হলুদ ফুলের টায়রায় সেজে কিশোরী-তরুণীরা।বাসন্তী রঙের পাঞ্জাবি পরে নিজেদের উপস্থিতি জানান দিচ্ছেন তরুণরাও।

এদিন বিকাল ৩টায় মেলা শুরুর আগেই গেটের সামনে দর্শনার্থীদের ভিড় দেখা গেছে। গেট খোলার সঙ্গে সঙ্গে উৎসাহ-উদ্দীপনায় মেলায় প্রবেশ করেন তারা। এ যেন বসন্তের দোলা লেগেছে তাদের গায়।

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে মেলা ঘুরতে আসা হাসান মাসুদ বলেন, ‘ব্যস্ততার কারণে এতদিন মেলায় আসতে পারিনি। আজ এসে অন্যরকম ভালো লাগছে। মেলা প্রাঙ্গণে প্রবেশের পর মনে হচ্ছে- চারদিকে বসন্তের আবহ ফুটে উঠেছে।’

এবারের বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তীর কাব্যগ্রন্থ ‘নিমগ্ন নির্জন’। বুধবার বইমেলা প্রাঙ্গণে কাব্যগ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন করেন ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। বইটি প্রকাশ করেছে পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স।

নতুন খবর/ এ.এম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *