নতুন বিশ্বরেকর্ড গড়ার অপেক্ষায় বাংলাদেশ , ক্রীড়া ডেস্ক, নতুন খবর

অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে আজ নতুন নতুন রেকর্ড গড়ার অপেক্ষায় বাংলাদেশ। ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হবে লাল-সবুজ বাহিনী। প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠে আত্মবিশ্বাসী আকবর আলীর নেতৃত্বাধীন যুব টাইগাররা। টুর্নামেন্টে সমানে সমান এগিয়েছে দুদল।

শিরোপা লড়াইয়ের মঞ্চে এখনো অপরাজেয়। দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে আজ বেলা ২টায় শুরু হবে ম্যাচ। প্রায় পাঁচ মাস আগে মাত্র ৫ রানের আক্ষেপ! কলম্বোয় যুব এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারত বাংলাদেশ। শিরোপা হাতে নিতে পারতেন আকবর আলী কিন্তু সে সময়ে তা হয়নি, এর ঠিক আগের মাসে ইংল্যান্ডে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টেও বাংলাদেশের হতাশার নাম ভারত। এই হতাশা গেল যুব বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায়েরও।

সময় গড়িয়েছে, আঞ্চলিক আসর, টুর্নামেন্ট ছাড়িয়ে এবার বিশ্বমঞ্চে মুখোমুখি দুদল। আবার শিরোপা লড়াই। তিনবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া, দুইবারের পাকিস্তান, একবার করে সেরা দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড এবার যেখানে যেতে পারেনি, সেখানে কি প্রথম সুযোগেই শেষ হাসি হাসবে বাংলাদেশ? মিলিয়ন ডলারের এ প্রশ্নের জবাব মিলবে আজ।

পরিসংখ্যান হয়তো খুব বেশি আশাবাদী হতে দেবে না। যুব বিশ্বকাপের শুধু ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নই নয়, চারবার শিরোপা জিতে সবচেয়ে সফল দলটি ভারত। তবু কী কারণে দেশকে আশাবাদী করছে আকবর আলীর দল? চলতি আসরে ৮ সেঞ্চুরির মধ্যে আছেন ভারতের একজন- ইয়াশাসভি জ্যায়েসওয়াল। আর বাংলাদেশের? তালিকায় মাহমুদুল হাসান, জয়ের কারণে আছে লাল-সবুজ পতাকা। শিরোপার লক্ষ্যে কী জ্বলে উঠতে পারবেন না তৌহিদ হৃদয়, তানজিদ হোসেনরা? ইনিংসে এখনো ৫ উইকেটের দেখা পাননি ভারতীয় কোনো বোলার। কিন্তু আলো ছড়ানো রাকিবুল হাসানের ওপর আস্থা রাখতেই পারে বাংলাদেশ।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তার নেওয়া ৫ উইকেট, বল হাতে জ্বলে উঠতে সাকিব, শরিফুলদের বাড়তি প্রেরণা। ফাইনাল গ্রাউন্ড পচেফস্ট্রুমকে অনেকটা হোম ভেন্যু বানিয়ে ফেলেছে বাংলাদেশ। আসরে সব কটি ম্যাচ সেন ওয়েস পার্কেই খেলেছে লাল-সবুজ দল। পাকিস্তানের বিপক্ষে এক ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। জিম্বাবুয়ে, স্কটল্যান্ড, স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা আর শেষ চারে নিউজিল্যান্ড। এখানে কেউ পারেনি বাংলাদেশের সঙ্গে। আর তাই আকবর-জয়দের সুযোগ সব প্রতিকূলতা ঠেলে স্বপ্ন পূরণের পথে এগিয়ে যাওয়ার।

বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের যে কোনো পর্যায়ে ফাইনালে ওঠার রেকর্ড ছিল না বাংলাদেশের। অনূর্ধ্ব-১৯ দল সেই মাইলফলক এনে দিয়েছে সেমিফাইনালে কিউই যুবাদের ৬ উইকেটে হারিয়ে। দেশের ক্রিকেটে যা নতুন ইতিহাস। এই ইতিহাস আরও সমৃদ্ধ হবে ভারতকে ফাইনালে হারাতে পারলে। অধিনায়ক আকবর আলী বেশ নির্ভার। তিনি জানিয়েছেন, তার সতীর্থরা মানসিকভাবে চাঙ্গা।

ভারতের কাছে আগের দুই হার নিয়ে মোটেও ভাবছেন না তারা। বরং বিশ্বকাপের ফাইনালকে আরেকটি ম্যাচ হিসেবে দেখছেন অধিনায়ক, সেমিফাইনাল জয়ের পরও মাটিতেই পা আছে আমাদের, আমরা এসেছি ট্রফি জিততে। আর এক ধাপ অতিক্রম করতে হবে। প্রক্রিয়া ঠিক রেখে ভালো ক্রিকেট খেলতে পারলেই হবে। সেমিফাইনালের মতো ফাইনালেও অলআউট পারফরম্যান্স চান আকবর।

দর্শকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এতদিন যেভাবে সমর্থন দিয়ে গেছেন, ফাইনালেও একইভাবে সমর্থন করবেন। ক্রিকেট মনস্তাত্ত্বিক গেম। ভালো খেলতে আত্মবিশ্বাস লাগে। এ মুহূর্তে যুবাদের শক্তির জায়গা হচ্ছে সেই আত্মবিশ্বাস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *