দুর্ভোগ চরমে,ঘন কুয়াশায় দুই নৌরুটে আজও ফেরি বন্ধ: মুন্সীগঞ্জ ও মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি, নতুন খবর |

 

 

ঘন কুয়াশার কারণে আজও দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। দুর্ঘটনা এড়াতে নৌরুট দুটিতে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ।

ঘন কুয়াশা দেখা দিলে সোমবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। বন্ধ করে দেয়া সব ধরনের নৌযান চলাচলও।এতে নদী পারাপারের অপেক্ষায় শিমুলিয়াঘাটে ঘাটে আটকা পড়েছে কয়েক শতাধিক যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহন।

অন্যদিকে কুয়াশা পড়ায় নদী পারাপাররত ৭টি ফেরি মাঝ পদ্মায় আটকা পড়েছে। এসব ফেরি নদীতে নোঙর করে রাখা হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের মেরিন কর্মকর্তা আলী আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে মঙ্গলবার সকালে ঢাকাটাইমসকে জানান, মধ্যরাতে নদীতে কুয়াশা পড়ায় ফেরি চলাচল অসম্ভব হয়ে পরে। তাই দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি বন্ধ রাখা হয়েছে। নৌরুটের মোট ১৭টি ফেরি মধ্যে ৭ ফেরি মাঝ পদ্মা ও বাকি গুলো ২ঘাটে নোঙর করে রাখা হয়েছে। কুয়াশা কেটে যাওয়া ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে।

অন্যদিকে একই কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটেও ফেরি চলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ। সোমবার দিবাগত রাত তিনটার দিক থেকে এই রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। ফেরি বন্ধের ফলে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় পদ্মাপারের অপেক্ষায় আছে আড়াই শতাধিক যান।

দৌলতদিয়া ঘাটের বিআইডব্লিউটিসি’র সহকারী ব্যবস্থাপক মো. খোরসেদ আলম জানান, কুয়াশার কারণে রাত ২টা থেকে ফেরি চলাচল ব্যাহত হতে থাকে। রাত ৩টায় কুয়াশার মাত্রা তীব্র আকার ধারণ করলে ফেরির মার্কিং বাতির আলো অস্পষ্ট হয়ে আসে। এর ফলে দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়। কুয়াশার ঘনত্ব কমে গেলে পুনরায় ফেরি চলাচল শুরু হবে বলেও জানান তিনি।

ফেরি বন্ধ করে দেয়ায় মাঝ নদীতে যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে আটকে আছে ছয়টি ফেরি। এতে নদী পারের অপেক্ষায় দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় আটকে পড়েছে আড়াই শতাধিক যানবাহন। দুর্ভোগে পড়েছেন চালক ও যাত্রীরা।

নতুন খবর//তুম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *