ট্রাম্প সোমবার হাসপাতাল ছাড়তে পারেন:আন্তর্জাতিক ডেস্ক, নতুন খবর |

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ট্রাম্প সোমবারই হোয়াইট হাউসে ফিরতে পারেন বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসকরা। যদিও ট্রাম্পের শারীরিক অবস্থা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়ে গেছে এবং বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছেন যে তার অবস্থা গুরুতর হতে পারে। খবর রয়টার্সের।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। এ কারণে হাসপাতাল ছেড়ে হোয়াইট হাউসে ফিরতে পারেন তিনি। সেখানেই তার চিকিৎসা চলবে।

এর আগে ট্রাম্পের শারীরিক অবস্থা নিয়ে হোয়াইট হাউস থেকে দেওয়া পরস্পরবিরোধী খবরে প্রেসিডেন্টের অবস্থা নিয়ে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। এরপরই রবিবার হাসপাতালের সামনে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে হোয়াইট হাউসের চিকিৎসক ডা. শন কনলি ট্রাম্পের বর্তমান শারীরিক অবস্থাসহ তার চলমান চিকিৎসার তথ্য জানান।

সাংবাদিকদের তিনি জানান, বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার ট্রাম্পের শারীরিক অবস্থা খারাপ থাকায় তাকে সাপ্লিমেন্টাল অক্সিজেন দিতে হয়েছে। শনিবারও অক্সিজেনের মাত্রা কম থাকায় তাকে স্টেরঢেড ডেক্সামেথাসোন দেওয়া হয়।

ডা. শন কনলি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাতে এবং শুক্রবার ভোরে আমি যখন প্রেসিডেন্টকে দেখে যাই তখন তার ‍মৃদু উপসর্গই ছিল। কিন্তু শুক্রবার সকালের পর জ্বর বেড়ে যায় এবং অক্সিজেন লেভেল ৯৩ এর নিচে নেমে যায়। এ অবস্থা দেখে আমি প্রেসিডেন্টকে অক্সিজেন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। যদিও তিনি অক্সিজেন নিতে ‍রাজি ছিলেন না। বলেছিলেন, তার শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে না, শুধু প্রচণ্ড জ্বরের কারণে খানিকটা ক্লান্ত বোধ করছেন। আমি তারপরও তাকে অক্সিজেন দেই এবং মাত্র দুই লিটার অক্সিজেন দেওয়ার পরই রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা ৯৫ এর উপর উঠে যায়।’

এসবের মধ্যেই রবিবার হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে সমর্থকদের চমকে দেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। হাসপাতালের বাইরে জড়ো হওয়া সমর্থকদের স্বাগত জানাতে সেখানে মোটর শোভাযাত্রা করেন। গাড়ির ভেতরে বসে তিনি সমর্থকদের উদ্দেশ্যে হাত নাড়েন।

বৃহস্পতিবার করোনাভাইরাস রিপোর্ট পজেটিভ আসার পর হোয়াইট হাউসে আইসোলেশনে থাকার কথা জানান ট্রাম্প ও মেলানিয়া। তবে তার একদিন পরই তাকে দেশটির ওয়ালটার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে ভর্তির পর ট্রাম্পের অবস্থা নিয়ে হোয়াইট হাউস ও চিকিৎসকদের বিপরীতমুখী বক্তব্য শোনা গেছে। যদিও ভিডিও বার্তায় নিজের ভালো অবস্থার কথা জানিয়েছেন ট্রাম্প।

নতুন খবর//তুম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *