সাত মাসে রফতানি আয়ে প্রবৃদ্ধি ৬.৫৫ ভাগ Reviewed by Momizat on . ০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ । মঙ্গলবার : অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান অপরিবর্তিত রয়েছে। এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ৪৩টি দেশের মধ্যে ২৯তম অবস্থানে ০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ । মঙ্গলবার : অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান অপরিবর্তিত রয়েছে। এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ৪৩টি দেশের মধ্যে ২৯তম অবস্থানে Rating: 0
You Are Here: Home » অর্থনীতি » সাত মাসে রফতানি আয়ে প্রবৃদ্ধি ৬.৫৫ ভাগ

সাত মাসে রফতানি আয়ে প্রবৃদ্ধি ৬.৫৫ ভাগ

০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ । মঙ্গলবার : অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান অপরিবর্তিত রয়েছে। এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ৪৩টি দেশের মধ্যে ২৯তম অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। তবে গতবারের মতো সারা বিশ্বে ১২৮তম অবস্থানে রয়েছে। এ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান এখনও তলানীতে।
আইনের শাসন, সরকারের আকার, নিয়ন্ত্রণ সক্ষমতা, মুক্তবাজার- মোটা দাগে এ চারটি ক্ষেত্রে রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক স্বাধীনতা বিচার করা হয়েছে। বিচারবিভাগের স্বাধীনতা ও সম্পত্তি অধিকার, বাণিজ্য স্বাধীনতা ও শ্রম স্বাধীনতা কমাতে সরকারের পদক্ষেপের কারণে বাংলাদেশের অবস্থান গতবারের তুলনায় বেড়েছে। গতকাল সোমবার ১৮০টি দেশ নিয়ে তৈরি এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের রক্ষণশীল থিংক ট্যাংক দ্য হেরিটেজ ফাউন্ডেশন।
এতে বলা হয়, দেশের স্কোর গতবারের অবস্থানের চেয়ে ০ দশমিক ১ পয়েন্ট বেড়ে ২০১৮ সালে ৫৫ দশমিক ১ শতাংশে রয়েছে। অর্থনৈতিক স্বাধীনতা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান গতবারের মতো ১২৮তম অবস্থানে অপরিবর্তিত রয়েছে। এ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থার কোন উন্নতি হয়নি। বাংলাদেশকে ছাড়িয়ে এগিয়ে রয়েছে ভুটান। সেখানে বলা হয়, দেশের স্কোর গত বারের অবস্থানের চেয়ে শূন্য দশমিক এক পয়েন্ট বেড়ে ২০১৮ সালে ৫৫ দশমিক ১ এক শতাংশে রয়েছে, যা ২০ যা বিচারবিভাগের কার্যকারিতা ও সরকারের সততার কারণে হয়েছে। তবে অর্থনীতিকে মোটা দাগে ‘বদ্ধ’ আখ্যা দিয়েছে।
তবে ওই গবেষণায় সম্পত্তির অধিকার, বাণিজ্য স্বাধীনতা ও শ্রমের স্বাধীনতার স্কোর আগের চেয়ে কমেছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। একটি মুক্তবাজার ব্যবস্থায় দেশগুলো কতটা সংগঠিত তা ওই সূচক পরিমাপ করে। প্রতিবেদনে বলা হয়, দীর্ঘ রাজনৈতিক অস্থিরতা, দুর্বল অবকাঠামো, দুর্নীতির মহামারী, কম বিদ্যুৎ সরবরাহ ও শ্লথগতির অর্থনৈতিক সংস্কারের কারলে বাংলাদেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিশ্বের গড় স্কোর হলো ৬১ দশমিক ৬ শতাংশ। তবে দক্ষিণ এশিয়ার ৪৩টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ২৯তম। তবে দক্ষিণ অঞ্চলের মধ্যে ভারত ও আরও কয়েকটি স্কোরের চেয়ে বাংলাদেশের বেশি স্কোর।
৫৪ দশমিক ৫ পয়েন্ট স্কোর নিয়ে ১৩০তম অবস্থানে ভারত, ৫৪ দশমিক ৪ স্কোর নিয়ে ১৩১তম অবস্থানে রয়েছে পাকিস্তান এবং নেপাল ৫৪ দশমিক এক পয়েন্টে। ৬১ দশমিক ৮ পয়েন্ট স্কোর নিয়ে ভুটান বাংলাদেশের আগে ৮৭তম অবস্থানে আছে। এবং শ্রীলংকা ৫৭ দশমিক ৮ পয়েন্ট নিয়ে ১১১তম অবস্থানে রয়েছে। হং কং, সিঙ্গাপুর, নিউ জিল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, আয়ারল্যান্ড, এস্তোনিয়া, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও সংযুক্ত আরব আমিরাত শীর্ষ দশের মধ্যে রয়েছে।

Leave a Comment