বিমানবন্দর রেলস্টেশনে জেলখানা বানিয়ে -ধরো-ছাড়ো, বাণিজ্য ।। Reviewed by Momizat on . মোঃ ইলিয়াছ মোল্লাঃ  রাজধানীর বিমানবন্দর রেলস্টেশনে নিরাপত্তা বাহিনী (আরএনবির) এক কর্মকর্তা ব্যক্তিগত ভাবে জেলখানা বানিয়ে ধরো-ছাড়ো বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভি মোঃ ইলিয়াছ মোল্লাঃ  রাজধানীর বিমানবন্দর রেলস্টেশনে নিরাপত্তা বাহিনী (আরএনবির) এক কর্মকর্তা ব্যক্তিগত ভাবে জেলখানা বানিয়ে ধরো-ছাড়ো বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভি Rating:
You Are Here: Home » জেলার খবর » ঢাকা » বিমানবন্দর রেলস্টেশনে জেলখানা বানিয়ে -ধরো-ছাড়ো, বাণিজ্য ।।

বিমানবন্দর রেলস্টেশনে জেলখানা বানিয়ে -ধরো-ছাড়ো, বাণিজ্য ।।

মোঃ ইলিয়াছ মোল্লাঃ  রাজধানীর বিমানবন্দর রেলস্টেশনে নিরাপত্তা বাহিনী (আরএনবির) এক কর্মকর্তা ব্যক্তিগত ভাবে জেলখানা বানিয়ে ধরো-ছাড়ো বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে । সেখানে গড়ে দৈনিক ৪০/৪৫ জনকে ধরে এনে টাকা হাতিয়ে নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় । ইদানীং ঈদকে সামনে রেখে এই বাণিজ্য তীব্রতর হয়েছে বলে জানা যায় । অভিযোগ আছে, টাকা আদায়ের জন্য ধৃত ব্যক্তিদের ওপর দৈহিক নির্যাতনও চালানো হয় । প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আরএনবির চিফ ইন্সপেক্টর (সিআই) জিহাদুর রহমান জাহিদ এই জেলখানার উদ্ভাবক ও নিয়ন্ত্রক । তিনি গোটা বিমানবন্দর এলাকা জুড়ে নিজস্ব সাম্রাজ্য গড়ে তুলেছেন । অফিসের স্টোর রুমে আলাদা গেট লাগিয়ে ,হাজতখানা, বানিয়ে, রান্নাঘরের পাশেই গড়ে তুলেছেন টর্চার সেল । যখন যাকে খুশি ধরে এনে হাজতখানায় ঢোকানো হচ্ছে । আর লেনদেন শেষে ছেড়েও দেওয়া হচ্ছে । ধৃতরা নির্যাতিত হয়ে দ্রুত স্বজন পরিজনদের ফোন করে বিকাশে টাকা আনিয়ে সিআইর দাবি পূরণ করেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায় । সিআইর চাঁদাবাজির আওতায় যাত্রী থেকে শুরু করে ভিক্ষুক পর্যন্ত কারও রেহাই নেই । স্টেশন ও আশপাশ এলাকায় ভিক্ষা করতে হলেও আগাম ১২০ টাকা চাঁদা দিয়ে তবেই ভিক্ষাবৃত্তিতে নামতে পারে । তার ধরো-ছাড়ো বাণিজ্যের কাজে ,ডান হাত,বাম হাত  হিসেবে কাজ করছে ২ ব্যক্তি । এদের একজন বহু মামলার আসামি মলম পার্টির সর্দার আক্তার হোসেন । অন্যজন বিমানবন্দর এলাকার প্রতাবশালী টয়লেট হান্নান । এসব ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে সিআই জিহাদুর রহমান জাহিদ বলেন, একটি চাঁদাবাজচক্র মিথ্যা ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে বিমানবন্দর স্টেশন থেকে আমাকে বিদায় করতে উঠেপড়ে লেগেছে । তিনি দাবি করেন, প্রতিদিনই ৭/৮ জন অপরাধীকে আটক করে আদালতে চালান দিয়ে থাকেন তিনি— ফলে বিমানবন্দর এলাকা এখন মাদকমুক্ত করা সম্ভব হয়েছে । বিমানবন্দর রেলস্টেশনে অবৈধ জেলখানা স্থাপন করে দেদারছে ধরো-ছাড়োর বাণিজ্য চালানো নিয়ে আরএনবির চিফ কমান্ড্যান্ট আনোয়ার হোসেনের দফতরে বার বার যোগাযোগ করেও তার কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি ।

নতুনখবর/সোআ

Leave a Comment