ইসলাম জোরজবরদস্তিকে সমর্থন করে না Reviewed by Momizat on . নিজস্ব প্রতিবেদক : ইসলাম শান্তির ধর্ম। আর এই শান্তি বা ইসলাম রক্ষার নামে যাঁরা মানুষকে নিজের মতাদর্শের অনুকূলে আনার জন্য জোরজবরদস্তি করে, তাঁরাই মুলত ইসলামের শা নিজস্ব প্রতিবেদক : ইসলাম শান্তির ধর্ম। আর এই শান্তি বা ইসলাম রক্ষার নামে যাঁরা মানুষকে নিজের মতাদর্শের অনুকূলে আনার জন্য জোরজবরদস্তি করে, তাঁরাই মুলত ইসলামের শা Rating:
You Are Here: Home » রাজনীতি » ইসলাম জোরজবরদস্তিকে সমর্থন করে না

ইসলাম জোরজবরদস্তিকে সমর্থন করে না

নিজস্ব প্রতিবেদক : ইসলাম শান্তির ধর্ম। আর এই শান্তি বা ইসলাম রক্ষার নামে যাঁরা মানুষকে নিজের মতাদর্শের অনুকূলে আনার জন্য জোরজবরদস্তি করে, তাঁরাই মুলত ইসলামের শান্তি ধ্বংসকারী। ইসলাম রক্ষার নামে ইসলাম ধর্মকে বিতর্কিত করার ষড়যন্ত্র করে। তাঁরাই ইসলামের মুল শত্রু। কারণ ইসলাম কখনও জোরজবরদস্তিকে সমর্থন করে না।

রবিবার (১১ জুন) বিকাল ৪টায় রাজধানীর শিশুকল্যাণ পরিষদ গোলটেবিলে বঙ্গরত্ম ফাউন্ডেশন আয়োজিত আলোচনা ও ইফতার অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ) সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় তাঁর প্রধান বক্তার বক্তব্যে এমনটাই মন্তব্য করেন।

আলোচনা ও ইফতার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য অ্যাড. কাজী মো. নজীবুল্লাহ হিরু বলেন, গত রমজান মাসে হলি আর্টিজানে ইসলামের নামে যাঁরা মানুষ হত্যা করেছে তাঁরা কখনও মুসলমান হতে পারে না। কিছু পশ্চিমা দেশের কুটকৌশলে আজ এই ধরনের হামলা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। শেখ হাসিনার সরকার অত্যন্ত দক্ষতার সহিত এই ধরনের জঙ্গিগোষ্ঠীকে মোকাবেলা করে আসছে যার সফলতা আমরা ইতোমধ্যেই দেখতে পেয়েছি।

প্রধান বক্তা কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, প্রতিবছর মতন এবারও রাজধানীর বাসাবো বৌদ্ধ মন্দির থেকে যখন গরীব-অসহায়-দরিদ্র মুসলমানদের ইফতার দেওয়া হয়, তখন তথাকথিত কিছু মুসলমানের ইজ্জতের উপর নাকি আঘাত লাগে! এই ধরনের মুসলিমরা তাঁর ধর্মীয় ভাই-বোনদের জন্য কিছু করতে না পারলেও অন্যদের সাহায্য-সহযোগিতা করা দেখলে তখন সেখানে মানবিকতা না দেখে ইসলামকে খুজে বেড়ায়। নানান ধরনের মন গড়া মন্তব্য স্যোশাল মিডিয়াতেও ভাইরাল করে; যা সত্যিই দুঃখজনক।

তিঁনি আরও বলেন, রমজানে মাসে অন্যান্য ধর্মের লোক যেখানে রমজান মাসকে সম্মান-শ্রদ্ধা করে সেখানে কিছু মৌলবাদগোষ্ঠী পরিকল্পিতভাবে ইসলামের শান্তি ও ধর্মী দাঙ্গা সৃষ্টির জন্য রাজধানীর কল্যাণপুরে সকল খাবারের হোটেলে জোরজবরদস্তি করে সকল খাবারের উপর পানি ঢেলে দেয়। ফুটপাতের চা বিক্রেতার কেটলিতে বালি ঢেলে দেয়। তাঁদের মনে রাখার উচিৎ ছিল, জোরজবরদস্তিকে ইসলাম কখনও সমর্থন করে না। আর এই ধরনের কাজের সাথে যে বা যাঁরাই সম্পৃক্ত ছিল তাঁরাও কখনও মুসলমান হতে পারে না।

এসময় বঙ্গরত্ম ফাউন্ডেশনের সভাপতি জুরফিকার আলী ভুট্টোর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্ঠা অ্যাড. মো. আজহারুল্লাহ ভূইয়া, সুপ্রিম কোট বার অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাড. মো. আবুল খায়ের, সংগঠনের উপদেষ্ঠা অ্যাড. মো. ফিরোজ আলম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রাব্বি চৌধুরী, সদস্য জহিরুল ইসলাম রিয়াদ, রাসেদ, মাসুম প্রমুখ।

নতুনখবর/সোআ

Leave a Comment