আগেও একটি বিয়ে করেছেন ক্রিকেটার সানি Reviewed by Momizat on . আদালত প্রতিবেদক : নাসনির সুলতার সঙ্গে বিয়ের আগেও জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার আরাফাত সানী ২০১০ সালের আরেকটি বিয়ে করেছেন। তার প্রথম স্ত্রীর ঘরে একটি সন্তানও আছে। ব আদালত প্রতিবেদক : নাসনির সুলতার সঙ্গে বিয়ের আগেও জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার আরাফাত সানী ২০১০ সালের আরেকটি বিয়ে করেছেন। তার প্রথম স্ত্রীর ঘরে একটি সন্তানও আছে। ব Rating:
You Are Here: Home » আইন-আদালত » আগেও একটি বিয়ে করেছেন ক্রিকেটার সানি

আগেও একটি বিয়ে করেছেন ক্রিকেটার সানি

আদালত প্রতিবেদক : নাসনির সুলতার সঙ্গে বিয়ের আগেও জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার আরাফাত সানী ২০১০ সালের আরেকটি বিয়ে করেছেন। তার প্রথম স্ত্রীর ঘরে একটি সন্তানও আছে।

বুধবার এ ক্রিকেটারের ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লার আদালতে জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধির শুনানিতে এসব তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। সানির আইনজীবীরা জানান, এই ক্রিকেটার এক সঙ্গে দুই জনকে নিয়েই সংসার করতে চান। কিন্তু নাসরিন দাবি করছেন, আগের স্ত্রীকে তালাক দেয়ার।

এদিন সানির আইনজীবী কাজী নজিবুল্লাহ হিরু, এম জুয়েল আহম্মদ এবং মুরাদুজ্জামান মুরাদের  মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন করেন।

সানির বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলার বাদী নাসরিনের পক্ষে আতিকুর রহমান জামিনের বিরোধিতা করেন। ওই সময় আদালতে উপস্থিত নাসরিন বলেন, ‘২০১০ সালে আরাফাত সানি একটি বিয়ে ছিল সেটা আমি জানতাম না। সেখানে না কি তার একটি বাচ্চাও আছে। তার সাথে যখন আমি দেশের বাইরে ঘুরতে যায় তখন তার পাসপোর্টে সে অবিবাহিত সেটা লেখা ছিল। সে আমাকে ধোঁকা দিয়েছে। সে জামিন নিয়ে যাওয়ার পর থেকে আমার সাথে যোগাযোগ করছে না। তাকে ফোন দিলে সে ফোন রিসিভ করে না। ’

নাসরিন বলেন, ‘এরপর একদিন আমি তার বাসায় গেলে তার মা নার্গিস আক্তার আমাকে মারধর করে। সে আমার সাথে একটি দিনও কাটাচ্ছে না। আমি তার জামিন নামঞ্জুরের প্রার্থনা করছি। একই সঙ্গে সে সানীর প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিয়ে তাকে ঘরে তুলতে বলেন।’

ওই সময় সানির আগের বিয়ের বিষয় স্বীকার করে তার আইনজীবীরা বলেন, ২০১০ সালে সানি বিয়ে করেন। সে ঘরে একটি সন্তানও আছে। তাকে পরিত্যাগ করা সানির পক্ষে সম্ভব নয়। তারা বলেন, ‘সানি দুই স্ত্রীকে নিয়ে সংসার করতে ইচ্ছুক। বাদীকে নিয়ে সংসার সংসার করতে চার বলেই তার জন্য বসুন্ধরা এলাকায় ফ্লাটও ভাড়া নিয়েছেন। কিন্তু বাদী সেই ফ্লাটে উঠছেন না। তিনি প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিতে বলছেন। যা সম্ভব না।’

শুনানি শেষে আদালত আরাফাত সানিকে আগামী ৬ জুলাই পর্যন্ত নাসরিনের সাথে আপসের  শর্তে জামিন মঞ্জুর করে।

এর আগে গত ৯ মার্চ একই আদালত সানিকে ১০ এপ্রিল পর্যন্ত জামিন দেয়। এরপর ১৫ মে ৭ জুন পর্যন্ত জামিন মঞ্জুর করা হয়।

গত ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকার চার নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি করেন নাসরিন সুলতানা। মামলায় বলা হয়, সাত বছর আগে পরিচয়ের সূত্র ধরে উভয়ের ঘনিষ্ঠতা হয়। একপর্যায়ে তারা দুজন দুজনকে ভালবাসেন। ২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর অভিভাবকদের না জানিয়ে তারা বিয়ে করেন। কিন্তু বিয়ের তিন বছরেও সানি দুই পরিবারের সঙ্গে আলোচনা করে নাসরিন সুলতানাকে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘরে তুলে নেননি। বারবার এ বিষয়ে চাপ দিলেও তিনি কালক্ষেপণ করেন।

আরাফাত সানির বিরুদ্ধে নাসরিন সুলতানা নারী নির্যাতনের মামলা ছাড়াও যৌতুক আইনে একটি মামলা এবং তথ্য-প্রযুক্তি আইনে আরেকটি মামলা করেছেন। ওই মামলায় গত ২২ মার্চ আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ। এতে আরাফাত সানির সাথে যে নাসরিন সুলতানার বিয়ে হয়েছিলে উল্লেখ করেন তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার এসআই মো. ইয়াহিয়া।

নতুনখবর/সোআ

Leave a Comment