প্রতিবেশীকে পানি দিতে না পারো মাদক দিও না’ নড়াইল পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম Reviewed by Momizat on . নড়াইল জেলা প্রতিনিধি:  প্রতিবেশীকে পানি দিতে না পারো ইয়াবা হেরোইন গাঁজা ফেনসিডিল দিও না’ পুলিশ নিয়ে অনেকের বিরূপ ধারণা থাকলেও পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম এ ধ নড়াইল জেলা প্রতিনিধি:  প্রতিবেশীকে পানি দিতে না পারো ইয়াবা হেরোইন গাঁজা ফেনসিডিল দিও না’ পুলিশ নিয়ে অনেকের বিরূপ ধারণা থাকলেও পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম এ ধ Rating:
You Are Here: Home » জেলার খবর » নড়াইল » প্রতিবেশীকে পানি দিতে না পারো মাদক দিও না’ নড়াইল পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম

প্রতিবেশীকে পানি দিতে না পারো মাদক দিও না’ নড়াইল পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম

নড়াইল জেলা প্রতিনিধি:  প্রতিবেশীকে পানি দিতে না পারো ইয়াবা হেরোইন গাঁজা ফেনসিডিল দিও না’ পুলিশ নিয়ে অনেকের বিরূপ ধারণা থাকলেও পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম এ ধারনা সম্পূর্ণই বদলে দিয়েছেন। সরদার রকিবুল ইসলাম একজন ব্যতিক্রমধর্মী পুলিশ অফিসার। সহকর্মী এবং সাধারন জনগণের আদর্শগত ভিন্নতা মেনে নিয়ে পরস্পরের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়তই। বিস্তারিত আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের রিপোর্টে “পুলিশ জনগনের বন্ধু” তিনি যেন এই বাক্যটির জীবিত নিদর্শন। তিনি অন্যতম একজন আদর্শ পুলিশ অফিসার যিনি কিনা বাংলাদেশে আধুনিকতা, প্রযুক্তি, সততা এবং আবেগ দিয়ে অপরাধ দমন করার চেষ্টা করেন। পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম স্যার নড়াইলবাসীর জন্য একজন আদর্শ। ম্যান ফর ম্যান, মানুষ মানুষের জন্য। মাত্র একজন মানুষের আন্তরিক প্রচেষ্টায় বদলে যেতে পারে কোন অবহেলিত জনপদের জীবনযাত্রা। ঘুরে দাঁড়াতে পারে যুব ও তরুণ সমাজ। মহিলারা হতে পারেন স্বাবলম্বী। ইচ্ছা থাকলে যুগ যুগ ধরে অবহেলিত হলেও নিজ প্রচেষ্টায় কর্মক্ষম মানুষ গাইতে পারে জীবনের জয়গান। দমন হতে পারে জঙ্গীবাদ ও মাদকের মতো সর্বনাশা অপদ্রব্য। জীবনমান বদলে যাওয়ায় নড়াইল জেলার ঘরে ঘরে এখন মাদক থেকে মুখ ফিরিয়ে নেওয়া মানুষের বসবাস। একসময়ের অলস মানুষগুলোর এখন কর্মব্যস্ত জীবন। যুগ যুগ ধরে নড়াইলে চলমান মাদকের ব্যবসার চালচিত্র বদলে দেয়ার অসাধ্যকে সাধন করেছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা। কোন সাধারন মানুষ থানায় গিয়ে পুলিশের সাথে গল্প করছে, চা খাচ্ছে এটা কি কল্পনা করতে পারা যায়? যেখানে একটি জিডি লিখতে কত হয়রানির শিকার হতে হত। সেখানে তিনি এই ভিন্ন চিত্র স্থাপন করেছেন যা সত্যিই অবিশ্বাস্য। উনার এলাকায় যে কেউ যেকোন সমস্যা নিয়ে সরাসরি দেখা করতে পারেন। আবারও বলতে হবে “পুলিশ জনগনের বন্ধু” পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম বাক্যটির জীবিত নিদর্শন। পুলিশের আইকন সরদার রকিবুল ইসলাম স্যার প্রায়ই বলেন, পুলিশ জনগনের শুধু বন্ধুই নয়, সেবকও। পুলিশ সব সময়ই জনগণের বন্ধু হিসেবে জনগণের পাশে ছিল আগামীতেও থাকবে। জনগণের আন্তরিক সহযোগিতা ছাড়া পুলিশের পক্ষে ব্যাপক জনগোষ্টির সেবা দেয়া সম্ভব নয়। জনগণকে সেবা পেতে হলে পুলিশিং কার্যক্রমে এলাকাবাসীকে এগিয়ে আসতে হবে। জীবন সংগ্রামকে সঠিক ভাবে উপলব্ধি করার জন্য প্রয়োজন সঠিক মানুষের। যে দিন এই বাংলাদেশের প্রতিটা জেলায় একজন করে পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম স্যারের মত সৎ পুলিশ অফিসার থাকবেন সেদিনই বাংলাদেশ হয়ে উঠবে নিরাপদ, সুন্দর এবং শান্তির দেশ। পেশাগত দায়িত্ব পালনে কর্তব্য অবহেলা না করার কারনে এই সাহসী পুলিশ কর্মকর্তা নোংরা রাজনীতির বিরাগভাজন হয়েছেন অনেকবার। কিন্তু সর্বদা আপোষহীন থেকেছেন , পরিচয় দিয়েছেন সততা, নিষ্ঠা ও যোগ্যতার। একজন পুলিশ কর্মকর্তা যে পেশাগত দায়িত্বের বাহিরেও অসংখ্য কাজে নিজের অদম্য প্রত্যয় দিয়ে যুক্ত হতে পারেন সেটি তিনি সন্দেহাতীতভাবে প্রমান করেছেন। এই মহতি পুলিশ কর্মকর্তা আমৃত্যু মানুষের সেবায় নিযুক্ত থাকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন এবং নড়াইল জেলাকে মাদক ও জঙ্গীর কবল থেকে মুক্ত করেই ছাড়বেন বলে প্রতিজ্ঞা নিয়েছেন নড়াইলে সরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এর আগমণের পর মাদকের বিরুদ্ধে নড়াইল পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলামের জিহাদ ঘোষণা করেন। তারই ধারাবাহিকতায় নড়াইলের গোয়েন্দা পুলিশ কর্তৃক মাদক বিরোধী অভিযানে এপর্যন্ত  বিপুল পরিমাণ মাদক দ্রব্য সহ ২৫০ জন তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবনকারীকে আটক করেছে। বিস্তারিত উজ্জ্বল রায়ের রিপোর্টে, গত ২৩-০২- ১৭ ইং তারিখে নড়াইল পুলিশের জঙ্গি দমন ও মাদক বিরোধী ৯০ দিনের কর্মসূচি ২৩ মে শেষ হয়েছে। এই অভিযানে ২২০০ পিচ ইয়াবা, ৩৭০ বোতল ফেনসিডিল, ৪৩ লিটার মদ, ২৪ পুরিয়া হেরোইন ও ১২ কেজি ২৫০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার হয়েছে। অভিযানকারীরা মোট ২০৬ টি মামলা এবং ২০৬ জনকে আটক করেছে।

নতুনখবর/সোআ

Leave a Comment