সরিষাবাড়ীতে মিথ্যা প্রতিবেদনে নিরপরাদ দুই ব্যক্তি কারাগারে জমি জরব দখলের পায়তারা Reviewed by Momizat on . সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি : সরিষাবাড়ীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে ভূমি অফিসের মিথ্যা প্রতিবেদন দেওয়ায় দুই নিরপরাদ জমির মালিক কারাগারে। গত ২ মে জমির সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি : সরিষাবাড়ীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে ভূমি অফিসের মিথ্যা প্রতিবেদন দেওয়ায় দুই নিরপরাদ জমির মালিক কারাগারে। গত ২ মে জমির Rating:
You Are Here: Home » আন্তর্জাতিক » Uncategorize » সরিষাবাড়ীতে মিথ্যা প্রতিবেদনে নিরপরাদ দুই ব্যক্তি কারাগারে জমি জরব দখলের পায়তারা

সরিষাবাড়ীতে মিথ্যা প্রতিবেদনে নিরপরাদ দুই ব্যক্তি কারাগারে জমি জরব দখলের পায়তারা

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি : সরিষাবাড়ীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে ভূমি অফিসের মিথ্যা প্রতিবেদন দেওয়ায় দুই নিরপরাদ জমির মালিক কারাগারে। গত ২ মে জমির মালিক ইন্তাজ আলী ও নায়েব আলীকে জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন আদালত । এ ঘটনায় রোববার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে নয়ন মণি জমির ধান কেটে নিয়ে যায়। এতে বাধা দিতে গেলে ইন্তাজের স্ত্রীসহ তার লোকজনকে বেধরক পিটিয়েছে ভূমিদস্যূ নান্টুর সন্ত্রাসীরা ।
এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের হোসনাবাদ গ্রামের মৃত আদব আলী ভূইয়ার দুই ছেলে ইন্তাজ আলী ও নায়েব আলীসহ শাহিদা বেগম ৮৮ শতাংশ জমি পাঁচ বছর আগে ক্রয় করেন।  ইন্তাজ আলী ও নায়েব আলীসহ শাহিদা বেগম দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে চাষাবাদ করে আসছে। একই গ্রামের ফজলুল হক ও তার ছেলে নয়ন মনি নান্টু ভূমি অফিসের ভুল প্রতিবেদন দিয়ে ওই জমি মালিক দাবী করেন । প্রকৃত জমির  মালিকদের  উপর মিথ্যা মামলা ও জমি দখলের পায়তারা  চালালে ওই জমির উপর আদালত ১৪৪ ধারা জারি করেন।  মহাদান ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা প্রতিপক্ষ ফজলুল হকের সাথে যোগসাজসে মোটা অংকের অর্থ ও অপক্ষমতার বিনিময়ে মিথ্যা প্রতিবেদন বানিয়ে দাখিল করে। পরে ফজলুল হকের ছেলে নয়ন মণি(নান্টু) বাদী হয়ে ইন্তাজ আলী ও নায়েব আলী ও শাহিদা বেগমের বিরুদ্ধে  আদালতে মিথ্যা হয়রানীমূরক মামলা দায়ের করেন।  দায়েরকৃত মামলায় গত ২মে ইন্তাজ আলী ও নায়েব আলী আদালতে হাজিরা দিতে গেলে জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন আদালত ।জমির মালিক কারাগারে থাকায় ও তাদের ছেলে মেয়েদের অনুপস্থিতে রোববার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে নয়ন মণি ও ফজলূল হকসহ বাড়ির মহিলাদের দিয়ে জমির ধান কেটে নিয়ে যায়। মহিলাদের কেউ বাধা সৃষ্টি না করতে পারে এরজন্যেই তাদের দিয়ে ধান কর্তন করেন। এ সময় বাধা দিতে গেলে ইন্তাজের স্ত্রীসহ তার লোকজনকে  বেধরক পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। আহতদের সরিষাবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
পরবর্তীতে পুলিশ , সাংবাদিক ও এলাকাবাসীর সহায়তায়  ও উপস্থিতিতে প্রকৃত মালিকদের কর্তনকৃত ধান ফেরৎ দিয়ে দেয় নান্টু।
এঘটনায় এলাকাবাসীর  মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। নাম না বলা শর্তে এলাকাবাসী জানান,এই জমিটি তাদুকাদর আমল থেকে জমি নায়েব আলী চুইকানী নিয়ে চাষাবাদ করে আসছে এবং পাঁচ বছর আগে তা ক্রয় করেন। আর নান্টুদেরই যদি জমি অয়তো তায়লে কি আর ধান কাইটা ধান ফেরৎ দেয়।
ভুক্তোভোগীরা বলেন,নান্টু আমদের বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে বলেন ,যাতে জমির মালিকরা জামিন না পায় সেই ব্যবস্থাই করমু।আর মৃত্যুর একদিন আগে হয়লেও তোগর জমি আমি নিয়াই ছাড়মু।
এ ব্যাপারে মহাদান ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা সাংবাদিকদের কাছে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমাকে জোর পূর্বক ভুল প্রতিবেদন দিতে বাধ্য করেছে।
এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফিরোজ আল মামুন জানান, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নতুনখবর/সোআ

Leave a Comment