পানি পান হতে পারে ক্ষতিকর Reviewed by Momizat on . লাইফস্টাইল ডেস্ক : অতিরিক্ত পানি পান হতে পারে ক্ষতিকর। আবার শরীরের চাহিদা অনুযায়ী পানি গ্রহণ না করলেও সমস্যা। স্বাস্থবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, লাইফস্টাইল ডেস্ক : অতিরিক্ত পানি পান হতে পারে ক্ষতিকর। আবার শরীরের চাহিদা অনুযায়ী পানি গ্রহণ না করলেও সমস্যা। স্বাস্থবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, Rating:
You Are Here: Home » লাইফস্টাইল » পানি পান হতে পারে ক্ষতিকর

পানি পান হতে পারে ক্ষতিকর

লাইফস্টাইল ডেস্ক : অতিরিক্ত পানি পান হতে পারে ক্ষতিকর। আবার শরীরের চাহিদা অনুযায়ী পানি গ্রহণ না করলেও সমস্যা। স্বাস্থবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, বেশি পানি পান করলে হজম ভালো হয়, অতিরিক্ত ক্যালরি পোড়ে, শরীরের স্বাভাবিক তাপমাত্রা বজায় থাকে- এই উপদেশ শুনেই বড় হয় প্রতিটি মানুষ। তবে মনে রাখতে হবে, সবকিছুরই একটা সীমা আছে।

​একবারে অনেকটা পানি খেলে: একবারে দুই গ্লাস বা আরও বেশি পানি পান করার পর কিছুক্ষণ বাদে আবার পানি পান করা শরীরের উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। প্রয়োজনের অতিরিক্ত পানি পান করলে শরীরে লবণের ভারসাম্য নষ্ট হয়। ফলে দেহে সোডিয়ামের অভাব দেখা দিতে পারে। সেখান থেকে হতে পারে সোডিয়ামের অভাবজনীত রোগ ‘হাইপোন্যাট্রেমিয়া’। এছাড়াও দেখা দিতে পারে বমি, শরীরের কোনো অংশ ক্ষণস্থায়ীভাবে আটকে যাওয়া, এমনকি মৃত্যুও।

​স্বচ্ছ প্রস্রাব: প্রস্রাবের রং স্বচ্ছ থাকলে বুঝতে হবে শরীরে পর্যাপ্ত পানি রয়েছে। আর হলদেভাব দেখা গেলে বুঝতে হবে শরীরের পানি প্রয়োজন। মনে রাখতে হবে, বিভিন্ন ধরনের সরবত, চা, ডাবের পানি ইত্যাদি থেকেও শরীর সারাদিন উল্লেখযোগ্য পরিমাণে পানি পায়।

​ভারী ব্যায়ামের পর: ব্যায়াম করলে ঘাম ঝরে এবং শরীর ইলেক্ট্রোলাইট হারায়। ফলে দেহে ইলেক্ট্রোলাইটের ভারসাম্য নষ্ট হয়। আবার ঘামের সঙ্গে শরীর থেকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান বেরিয়ে যায়। এই অভাবগুলো পূরণ করতে যা প্রয়োজন তা শুধু পানিতে নেই। তাই এসময় পান করতে হবে ডাবের পানি। যাতে থাকে ম্যাগনেসিয়াম, আঁশ, সোডিয়াম, পটাশিয়াম এবং ভিটামিন সি।

​খাওয়া আগে পানি পান: খাওয়া কমাতে এক গ্লাস পানি আগে পান করার কথা বলা হয়। এতে পেট ভরা থাকে অনেকক্ষণ এবং ওজন কমে। তবে এই পদ্ধতি অনুসরণ করতে গিয়ে বাড়াবাড়ি করে ফেলেন অনেকেই। শরীরের স্বাভাবিক অবস্থা বজায় রাখতে নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্যালরি আবশ্যক। তাই খাওয়ার আগে কয়েক গ্লাস পানি পান করে পর্যাপ্ত পরিমাণের চেয়ে কম খাবার খাওয়া অস্বাস্থ্যকর।

​ফ্লেইভারযুক্ত পানীয়: কোনো স্বাদ না থাকলেও পানির প্রতি অরুচি আসে না কখনও। আবার পানিতে স্বাদ যোগ করা গেলে সেটাও মন্দ হয় না। তবে বাজারের ফ্লেইভারযুক্ত পানীয়তে উপকারের বদলে অপকারই বেশি। তাই ঘরেই পানিতে স্বাদ যোগ করতে পারেন বিভিন্ন ফল ব্যবহার করে। যেমন- তরমুজ, লেবু, শসা, জাম ইত্যাদি।

​খাওয়ার পর পানি: খাওয়ার ঠিক পরপরই পানি পান করলে শরীর খাবার থেকে পুষ্টি গ্রহণ করার পর্যাপ্ত সুযোগ পায় না। কারণ খাওয়ার ঠিক পরপরই পানি পান করলে গ্যাস্ট্রিক অ্যাসিড ও হজমের জন্য প্রয়োজনীয় পাচকরস ধুয়ে যায়। তাই খাওয়ার কমপক্ষে ৩০ মিনিট পরে পানি পান করা উচিত।

নতুনখবর/সোআ

Leave a Comment